সকালে খালি পেটে লেবু গরম পানি খাওয়ার উপকারিতা

সকালে খালি পেটে লেবু গরম পানি খাওয়ার উপকারিতা

সকালে খালি পেটে লেবু গরম পানি খাওয়ার উপকারিতা-

আমাদের অনেকেরই অভ্যাস আছে সকালে ঘুম থেকে উঠেই এক কাপ ধোঁয়া উঠা চা অথবা কফি খাওয়ার। কিন্তু খালি পেটে এই চা বা কফি খাওয়া কতটা ক্ষতিকর তা আমরা অনেকেই জানিনা। এতে শরীরে পানিশূন্যতা তৈরি হয়। যদি এই চা বা কফি খাওয়ার পরিবর্তে এক গ্লাস গরম পানিতে দুই চামচ লেবুর রস দিয়ে খাওয়া যায় তাহলে এটি আমাদের শরীরের জন্য অনেক উপকারী। সকালে ঘুম থেকে উঠে ব্যস্ততার কারণে নাস্তা সময়মতো খাওয়া হয়ে ওঠে না। সকালে উঠে লেবু দিয়ে গরম পানি খেলে আপনার সারাদিনের হজমশক্তি বাড়ানো ছাড়াও অনেক উপকার পাবেন। চাইলে সাথে মধুও মিশাতে পারেন।

এবার চলুন জেনে নেই সকালে খালি পেটে লেবু গরম পানি খাওয়ার উপকারিতা সম্পর্কেঃ

হজম শক্তি বাড়ায়ঃ 

লেবু পানিতে যে এসিড রয়েছে তা খাবার হজম করতে সাহায্য করে। বয়সের সাথে সাথে হজম ক্ষমতা কমে যায়। তাই প্রতিদিন সকালে হালকা গরম পানিতে কিছুটা লেবুর রস মিশিয়ে খেলে সারা দিনের হজমশক্তি ভালো থাকে। বিভিন্ন গবেষণায় দেখা যায় যে, ফাইবার হজম শক্তি বাড়াতে বেশ কার্যকরী ভূমিকা পালন করে। তাই লেবু পানি না খেলেও টুকরা লেবু পানিতে দিয়ে বা লেবুর ছোলা পানিতে দিয়ে খেলে উপকার পাবেন।

সকালে খালি পেটে লেবু গরম পানি খাওয়ার উপকারিতা

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়ঃ

লেবু হচ্ছে টকজাতীয় ফল, এতে প্রচুর ভিটামিন সি রয়েছে। ভিটামিন সি যা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।এছাড়াও লেবুতে আছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট যার প্রভাবে শরীরে কোনো রোগ জীবাণু সহজে বাসা বাঁধতে পারে না। তাই যেকোনো ধরনের ইনফেকশন বা অসুস্থতা এড়াতে লেবুর কোনো বিকল্প নেই।

পটাশিয়ামের মাত্রা বাড়ায়ঃ

আমরা মনে করি কলা এবং বিভিন্ন ধরনের শাক-সবজি ও ফলমূলে পটাশিয়াম রয়েছে। কিন্তু লেবু থেকেও যথেষ্ট পরিমাণ পটাশিয়াম পাওয়া সম্ভব। পটাশিয়াম রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে, মাংসপেশীর কর্মক্ষমতা বাড়ায় ও হার্টবিট নিয়ন্ত্রণ করে। তাই আপনার শরীরে পটাশিয়ামের চাহিদা পূরণ হওয়া দরকার। যেহেতু লেবুতে পটাশিয়াম রয়েছে তাই দিনের শুরুতে লেবু পানি পান করে নিলে আপনার শরীরে পটাশিয়ামের চাহিদার কিছুটা পূরণ করতে পারবেন।

ওজন কমাতে সাহায্য করেঃ

আপনি  যদি ডায়েট করার কথা ভেবে থাকেন তাহলে আপনি লেবু পানি খেতে পারেন। লেবুতে আছে পলিফেনলস্‌ যা ক্ষুধা নিবারণে সাহায্য করে। এছাড়া খাওয়ার আগে পানি পান করলেও ক্ষুধা কিছুটা কম লাগে। তবে ওজন কমানোর জন্য ঠাণ্ডা লেবুর পানিই বেশি কার্যকরী।

কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করেঃ

কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা সমাধানেও দারুণ কাজ করে লেবু পানি। সকালে ঘুম থেকে উঠে খালি পেটে হালকা কুসুম গরম পানিতে লেবুর রস মিশিয়ে পান করে নিন। শুধু লেবুর রস গরম পানি দিয়ে পান করতে খারাপ লাগলে এর সাথে মিশিয়ে নিতে পারেন মধু ও সামান্য লবণ।

ক্লান্তি দূর করেঃ

গরমের দিনে আমাদের শরীর প্রচণ্ড ঘেমে যায়। ফলে শরীরে ব্লাড সুগার লেভেল কমে যায় এবং আমরা ক্লান্ত হয়ে যাই। লেবু পানিতে চিনি মিশিয়ে পান করে নিলে ব্লাড সুগার লেভেল বেড়ে যায় এবং ক্লান্তিটা আর থাকে না। 

বয়স ধরে রাখেঃ

গবেষকদের মতে, ভিটামিন সি বলিরেখার সম্ভাবনা অনেকটা কমিয়ে আনে। ভিটামিন সি-তে আছে কোলাজেন যা ত্বকের সুরক্ষায় কাজ করে।

এছাড়াও ডায়বেটিকসের সমস্যাতেও লেবু অনেক উপকারী।লেবুর খোসা রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে যা বিপাক প্রক্রিয়ায় সহায়ক। তাই ঠাণ্ডা লেবুর পানিতে কিছুটা লেবুর খোসা কুচি করে মিশিয়ে খেয়ে নিন।  লেবু পানি পান করলে আপনার শরীরে পানির অভাব হবে না এবং কিডনিতে পাথর জমারও সম্ভাবনা থাকবে না। এছাড়া লেবু কিডনি ও পাকস্থলীর পাথর গলাতেও সাহায্য করে। লেবু লিভারের ফ্যাট কমাতে সাহায্য করে। তাই লিভারকে সুস্থ রাখার জন্য লেবু পানি খুব উপকারী।